Post Popularity:

Site Statistics
  • Total visitors : 9,923
  • Total page views: 12,513

Privacy Policy

জরুরী প্রয়োজনে রক্ত কোথায় পাবেন?

0 Comments

বিভিন্ন জরুরি অবস্থায় জীবন বাঁচাতে আমাদের রক্তের প্রয়োজন হয়। ঠিক সময় রক্ত পাওয়া না গেলে জীবন বাঁচানো কষ্টকর হয়ে পড়ে। তাই শুধু দরকারের সময় রক্তে খুজলে চলবে না, আগে থেকেই প্রস্তুতি থাকতে হবে। কিছু সতর্কতা মেনে চললে আমরা আমাদের প্রয়োজনের সময় সহজেই কাঙ্ক্ষিত রক্ত পেতে পারি।


যেমন আমাদের এই আলোচনা মনযোগ দিয়ে শুনলে প্রয়োজনের সময় রক্তের অভাব পড়বে না।

আজকে আমরা আলোচনা করবো, কোয়ান্টাম থেকে কিভাবে যেকোনো মুহুর্তে ফ্রিতে রক্ত সংগ্রহ করতে হয়।

কোয়ান্টাম কিন্তু গতানুগতিক ধারায় রক্ত প্রদান করে না। আপনি গেলেই আপনাকে রক্ত দেবে না। আপনাকে রক্ত পেতে হলে যা করতে হবে তা হলো,<span;> জতটুকু রক্ত আপনার প্রয়োজন ততটুকু রক্ত তাদেরকে দিতে হবে। তাই ডোনার আপনাকে সাথে করে নিয়ে যেতে হবে। মানে রক্তের বিনিময়। যে কোনো একটি গ্রুপের রক্ত দিয়ে আপনি অপর যে কোনো গ্রুপের রক্ত গ্রহন করতে পারবেন।
আপনি চাইলে ভবিষ্যতের জন্য রক্ত জমা করেও রাখতে পারেন। মানে আপনি যদি নিয়মিত কোয়ান্টামে রক্ত প্রদান করেন, সেই তথ্য কোয়ান্টামের ডাটাবেইযে থেকে যাবে। আর আপনার বা আপনার আসে পাশে কেউ বিপদে পড়লে আপনি কোয়ান্টাম থেকে আপনার দেয়া রক্তের বিপরীতে রক্ত গ্রহন করতে পারবেন।

রক্ত নেয়ার জন্যে আপনাকে যা করতে হবে-

সংশ্লিষ্ট হাসপাতাল/ ক্লিনিকের প্যাডে অথবা নির্ধারিত ফর্মে মেডিকেল অফিসারের সিল ও স্বাক্ষরযুক্ত লিখিত ব্লাড রিকুইজিশন আনতে হবে। রিকুইজিশন ফর্মে রোগীর অবস্থানসহ তার রক্তের গ্রুপ ও রেসাস ফ্যাক্টর স্পষ্টভাবে লেখা থাকতে হবে।

ক্রসম্যাচিং-এর জন্যে সংশ্লিষ্ট রোগীর ৫ মি.লি. পরিমাণ রক্ত (ফ্রেশ স্যাম্পল) সাথে আনতে হবে। রক্ত বা রক্ত উপাদানের জন্যে নির্ধারিত প্রসেসিং খরচ প্রদান ও ক্রসম্যাচিং-এর জন্যে নির্ধারিত সময় পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে।

যেখানে যোগাযোগ করতে হবে,

স্বেচ্ছা রক্তদান কার্যক্রম

৩১/ভি, (২য় তলা), শিল্পাচার্য জয়নুল আবেদিন সড়ক, শান্তিনগর,(ইস্টার্ন প্লাস মার্কেটের পাশে), ঢাকা-১২১৭

+৮৮ ০১৭১৪ ০১০৮৬৯
+৮৮ ০২ ৪৮৩২২৮০৯
blood@quantummethod.org.bd

কোয়ান্টাম এর ভাষ্যমতে,

আপনার দেয়া এক ব্যাগ রক্ত প্রয়োজন মেটাচ্ছে একসাথে কয়েকজনের ….

রোগভেদে একেক রোগীর জন্যে রক্তের একেক উপাদান লাগে। যেমন অগ্নিদগ্ধ রোগীকে শুধু রক্তরস (Plasma) দিলে চলে। আবার রক্তস্বল্পতার রোগীকে দিতে হয় রক্তকণা বা প্যাকড্‌ সেল (Packed Cell)। হিমোফিলিয়া রোগীদের ফ্যাক্টর ৮ ও থ্যালাসেমিয়া রোগীদের দিতে হয় লোহিত রক্তকণা।
কোয়ান্টাম ল্যাবে আধুনিক প্রযুক্তির সাহায্যে আপনার দেয়া একব্যাগ রক্তকে এমনি ৮টি উপাদানে আলাদা করার ব্যবস্থা রয়েছে—

• ১. প্লাটিলেট কনসেনট্রেট

• ২. ফ্রেশ প্লাজমা

• ৩. ফ্রেশ ফ্রোজেন প্লাজমা

• ৪. প্লাটিলেট রিচ প্লাজমা

• ৫. প্লাটিলেট পুওর প্লাজমা

• ৬. প্রোটিন সলিউশন

• ৭. রেডসেল কনসেনট্রেট

• ৮. ক্রায়ো-প্রিসিপিটেট

তার মানে আপনার দেয়া একব্যাগ রক্তকে তারা একইসাথে কাজে লাগাচ্ছে অনেকজনের প্রয়োজনে।

কোয়ান্টাম ফান্ডেশনের নিবেদিতপ্রাণ সংযোগায়ন কর্মীরা…

একদল সংযোগায়ন কর্মী নিরলস কাজ করছেন আপনার প্রয়োজনে। রক্তের জন্যে প্রতিদিন ১৫০০’র বেশি ফোন করেন তারা ডোনারদের কাছে। জন্মদিনের শুভেচ্ছা জানান, ইমেইল করেন ল্যাবে দিয়ে যাওয়া তাদের রক্তের স্ক্রিনিং রিপোর্টগুলো। রক্তসংকটের সময় বা বিরল গ্রুপের রক্তের জন্যে জরুরি যোগাযোগ তো আছেই।

ধন্যবাদ সবাইকে।
এই গুরুত্বপূর্ণ ইনফরমেশনটি আপনার ফেসবুক ওয়ালে শেয়ার করে আপনার পরিচিতজনদের যানার সুযোগ করে দিন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.